দু'দলের মধ্যে ব্যবধান হয়ে দাঁড়ালেন ম্যাথুজ। © AFP (File Photo)
দু’দলের মধ্যে ব্যবধান হয়ে দাঁড়ালেন ম্যাথুজ। © AFP (File Photo)

 

মার্চ ৬, ২০১৪
 
বাংলা পড়তে অসুবিধে হলে অভ্র কীবোর্ড ব্যবহার করুন
এশিয়া কাপের দশম ম্যাচে ক্রিকেটকান্ট্রির তরফ থেকে সবাইকে স্বাগত জানাই। শ্রীলঙ্কা ইতিমধ্যেই ফাইনালে পৌঁছে যাওয়ায় আর বাংলাদেশ প্রতিযোগিতা থেকে ছিটকে যাওয়ায় আজকের খেলা এমনিতে গুরুত্বহীন, কিন্তু পাকিস্তানের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের দুর্দান্ত লড়াইয়ের পর আজকের খেলা জমজমাট হওয়ার যথেষ্ট সম্ভাবনা আছে। দেখা যাক্‌, আজ কোনও অঘটন ঘটে কিনা।
আজকের মত এইটুকুই। শনিবার ফাইনালে আবার দেখা হবে আপনাদের সঙ্গে।
ম্যান অফ্‌ দ্য ম্যাচ – অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ।
শুরুতে আট রানে তিন উইকেট হারিয়ে চাপে থাকলেও অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ ঠাণ্ডা মাথায় ম্যাচ বের করেন। প্রথমে থিরিমান্নে, পরে থিসারার সাহায্যে ছ’বল বাকি থাকতে ম্যাচ বের করেন ম্যাথুজ। গতবারের এশিয়া কাপে বাংলাদেশ ফাইনালে পৌঁছলেও এবার সব ম্যাচে হেরে তারা বিদায় নেয়।
অল্‌-অমীন ১০-২-৪২-২, রুবেল হোসেন ৬-০-২৫-০, শাকিব অল্‌ হাসান ১০-০-২৭-১, জিয়াউর রহমান ১০-০-৩৪-১, আরাফত সানি ৭-০-৪৬-১, মাহ্‌মুদউল্লাহ্‌ ৬-১-৩০-১।
আরেকবার ম্যাথুজের নেতৃত্বে শ্রীলঙ্কা জয়ী।
অল্‌-অমীন ১০-২-৪২-২।
বাংলাদেশ উইকেট পেল ঠিকই, কিন্তু দু’ওভারে ন’রান তোলা আটকাতে পারবে।
থিসারার শট সোজা অল্‌-অমীনের হাতে লেগে কভারে রুবেলের হাতে গেল; থিসারা ইতস্ততঃ করলেন, রুবেলের থ্রো সোজা নন-স্ট্রাইকিং এন্ডের উইকেট ভেঙে দিল! আউট!
আউট! থিসারা রান আউট (রুবেল) ১৫(২৩)!
১৮ বল, ১২ রান।
বড়সড় অঘটন না ঘটলে ম্যাচের রাশ শ্রীলঙ্কার হাতে।
শাকিব ১০-০-২৭-০। ম্যাচের কর্তৃত্ব শ্রীলঙ্কার হাতে।
মাহ্‌মুদউল্লাহ্‌র বলে ম্যাথুজের খোঁচা আনামুলের পাশ দিয়ে বেরিয়ে গেল। চার।
বাংলাদেশের উইকেট দরকার। কোনওভাবে।
উইকেট পড়লেও ম্যাথুজ-থিসারাকে আটকাতে পারবে বাংলাদেশ?
সম্পূর্ণ অকারণে ক্রস্‌ব্যাটে সুইপ করতে গিয়ে খোঁচা দিলেন চতুরঙ্গ। আর চার উইকেট দরকার বাংলাদেশের।
আউট! চতুরঙ্গ কট্‌ আমানুল বোল্ড মাহ্‌মুদউল্লাহ্‌ ৪৪(৫১)!
শাকিবের ফুলটস, চতুরঙ্গর উঁচু সুইপ, আর সবকিছুর শেষে অল্‌-অমীন লোপ্পা ক্যাচ ফেলে দিলেন।
সানির ওভারে বারো রান উঠল। মুশফিকুর হয়ত খানিকটা দেরি করে ফেললেন শাকিবকে আনতে।
শাকিব এলেন।
ম্যাথুজ-চতুরঙ্গকে এখন যথেষ্ট আত্মবিশ্বাসী দেখাচ্ছে। শাকিবকে আনা ছাড়া উপায় নেই।
চতুরঙ্গ চালালেন, ফস্কালেন, কিন্তু আমানুলও ফস্কালেন। বাই চার।
বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ষষ্ঠ উইকেটে শ্রীলঙ্কার প্রথম পঞ্চাশ রানের জুটি।
পাওয়ারপ্লে শুরু।
ম্যাথুজ-চতুরঙ্গ অনায়াসে রান করছেন। হয়ত শাকিবকে ফেরত আনা ছাড়া বিশেষ উপায় নেই।
মুশফিকুর মাহ্‌মুদউল্লাহ্‌র হাতে বল তুলে দিলেন।
জলপানের বিরতি।
আক্রমণাত্মক বোলিং ও ব্যাটিং; ম্যাথুজ-চতুরঙ্গ ক্রমশঃ বিপজ্জনক হয়ে উঠছেন।
জিয়াউর রহমান টানা দশ ওভার বল করলেন। ১০-০-৩৪-১। আজ অসাধারণ বল করেছেন। নিখুঁত লাইন-লেন্থ, সঙ্গে বাউন্সের ছোবল।
৩০-গজ বৃত্তের ভেতর একজন সাতজন ফিল্ডার। গালিতে একজন, আর বাকি ছ’জন বৃত্তের সীমানায়। মুশফিকুর উইকেট পেতে বদ্ধপরিকর। শ্রীলঙ্কার একশো।
জিয়াউরের জোরদার অ্যাপিল বাউডেন নাকচ করে দিলেন। লেগস্টাম্পের বাইরে পিচ করেছিল।
রুবেলের পরপর দুটো বাউন্সার সামলে উঠলেন ম্যাথুজ।
রুবেলকে গ্লান্স করে চার মারলেন ম্যাথুজ।
সানিকে সরিয়ে রুবেলকে আনলেন মুশফিকুর।
জিয়াউরের বলে ম্যাথুজ চালালেন, ঝাঁপিয়ে পড়া আনামুলের ডানদিক দিয়ে বল সোজা সীমানার বাইরে।
মুশফিকুর আক্রমণাত্মক অধিনায়কত্ব বজায় রেখেছেন। এখনও ৩০-গজ বৃত্তের ভেতর ছ’জন ফিল্ডার, ব্যাট্‌স্‌ম্যানকে তুলে মারতে প্রলুব্ধ করছেন সানি…
নতুন ব্যাট্‌স্‌ম্যান চতুরঙ্গ।
লং-অন সত্ত্বেও থিরিমান্নে সানিকে সোজা তুলে মেরেছিলেন, কিন্তু ডানদিকে অনেকটা ছুটে এসে দুর্দান্ত ক্যাচ ধরলেন!
আউট! থিরিমান্নে কট্‌ রুবেল বোল্ড সানি ৩১(৫৭)!
সানি অদ্ভুত আক্রমণাত্মক বোলিং করছেন। ডিপে ফীল্ডার না রেখেও লূপ আর ফ্লাইট; বাংলাদেশ জিততে বদ্ধপরিকর।
ম্যাথুজ এগিয়ে এসে জিয়াউরকে মাথার ওপর দিয়ে সোজা তুলে দিলেন! ছয়!
সানি আসার প্রায় সঙ্গে সঙ্গে থিরিমান্নে মিড্‌-অফের ওপর দিয়ে তুলে চার মারলেন।
শাকিব ক্রমশঃ চেপে বসছেন। আস্কিং রেট অবশ্য পাঁচের নিচে।
শ্রীলঙ্কার পঞ্চাশ, ১৬.৩ ওভারে, চার উইকেটের বিনিময়ে।
শাকিব ৪-০-৯-০।
জলপানের বিরতি শেষ। নতুন ব্যাট্‌স্‌ম্যান স্বয়ং ম্যাথুজ।
জিয়াউরের বল খানিকোটা লাফাতেই খোঁচা, আর ডানদিকে ঝাঁপিয়ে আমানুলের দুর্দান্ত ক্যাচ!
আউট! প্রিয়াঞ্জন কট্‌ আমানুল বোল্ড জিয়াউর ২৪(৩৮)!
তাড়াতাড়ি উইকেট না পড়লে বাংলাদেশের পক্ষে সমস্যা দেখা দিতে পারে।
অল্‌-অমীনের জায়গায় এবার জিয়াউর।
শাকিব আর অল্‌-অমীন দারুণ বল করলেও প্রিয়াঞ্জন আস্তে আস্তে নিজেকে মেলে ধরতে সক্ষম হচ্ছেন।
পয়েন্ট আর কভারের ফাঁক দিয়ে আলতো ছোঁয়ায় প্রিয়াঞ্জন চার মারলেন।
শাকিবের প্রথম পাঁচ বলে কোনও রান না হওয়ার পর প্রিয়াঞ্জন মারতে গিয়ে খোঁচা দিলেন। বল আমানুলের পাশ দিয়ে লং লেগে গেল।
পাওয়ারপ্লের শেষ ওভার। রুবেলের জায়গায় শাকিব।
অল্‌-অমীনের মেডেন ওভার।
থিরিমান্নে আর প্রিয়াঞ্জনকে একটু থিতু দেখাচ্ছে। প্রিয়াঞ্জন অসাধারণ স্কোয়্যারকাটে চার মারলেন। বাংলাদেশের উইকেট দরকার।
শ্রীলঙ্কার পরিস্থিতি ক্রমশঃই কঠিন হয়ে যাচ্ছে।
অল্‌-অমীন বাউন্স করালেন, কিন্তু পিছিয়ে গিয়ে নিখুঁত হুকে চার মারলেন প্রিয়াঞ্জন।
নতুন ব্যাট্‌স্‌ম্যান প্রিয়াঞ্জন।
থিরিমান্নে কভারে ঠেলে রান নিতে গিয়ে ফিরে গেলেন। মাহেলা ততক্ষণে মাঝ-পিচে, ফেরার কোনও সম্ভাবনাই ছিল না। মাহ্‌মুদউল্লাহ্‌ সময় নিয়ে ঠাণ্ডা মাথায় রান আউট করলেন।
আউট! জয়বর্ধনে রান আউট (মাহ্‌মুদউল্লাহ্‌) ০(৫)!
নতুন ব্যাট্‌স্‌ম্যান মাহেলা।
সঙ্গকারা বাইরের বলে চালিয়ে খোঁচা দিলেন – প্রথম স্লিপে ক্যাচ! প্রথম প্রচেষ্টায় ধরতে না পারলেও নাসির দ্বিতীয়বারে ধরে নিলেন!
আউট! সঙ্গকারা কট্‌ আনামুল কট্‌ নাসির বোল্ড অল্‌-অমীন ২(৫)!
নিখুঁত ফ্লিকে থিরিমান্নে রুবেলকে চার মারলেন।
নতুন ব্যাট্‌স্‌ম্যান সঙ্গকারা। এই মরসুমে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে সঙ্গকারা মারাত্মক ফর্মে।
সঙ্গকারাকে প্রথম থেকেই রীতিমত আত্মবিশ্বাসী দেখাচ্ছে।
পুল করার চেষ্টা করলেন কুশল পেরেরা, হাল্কা খোঁচা, আউট!
আউট! কুশল পেরেরা কট্‌ আনামুল বোল্ড অল্‌-অমীন ০(২)!
শ্রীলঙ্কার ইনিংস শুরু হচ্ছে। আপনারা তৈরি তো?
লকমল ১০-০-৩২-২, থিসারা ৮-০-২৯-২, সেনানায়কে ১০-১-৩৭-০, চতুরঙ্গ ১০-০-৩৩-১, মেন্ডিস ৯-০-৫৫-২, প্রিয়াঞ্জন ৩-০-১১-২।
থিসারা আর লকমলের অসাধারণ বোলিংএর সামনে বাংলাদেশের স্কোর দাঁড়াল ২০৪। শ্রীলঙ্কাকে আটকানোর জন্য এই স্কোর যথেষ্ট হবে?
ইয়র্কার! বোল্ড! থিসারার হ্যাট্রিক হবে?
আউট! রুবেল বোল্ড থিসারা ১২(১৪)!
থিসারা বলের গতি কমালেন, জিয়াউর বোল্ড!
আউট! জিয়াউর বোল্ড থিসারা ১২(১৪)!
সঙ্গকারার উইকেটকীপিং-এর মান আজ রীতিমত খারাপ। আরও চারটে বাই। লকমলের ইয়র্কার অবশ্য জারি। স্লগ ওভারে আজ লকমল মালিঙ্গাকে মনে করিয়েছেন।
মেন্ডিসের ওয়াইড আর সঙ্গকারার নিম্নমানের উইকেটকীপিংএর সাহায্যে বাংলাদেশ দু’শোর পথে।
বেপরোয়া হয়ে মারতে চেষ্টা করলেন নাসির, কিন্তু মিড্‌-অনে সহজ ক্যাচ।
আউট! নাসির কট্‌ মাহেলা বোল্ড লকমল ৩০(৪৯)!
সেনানায়কে ১০-০-৩৭-০।
লকমলের অসাধারণ ইয়র্কার মাহ্‌মুদউল্লাহ্‌-র অফ্‌স্টাম্পে! নতুন ব্যাট্‌স্‌ম্যান জিয়াউর।
আউট! মাহ্‌মুদউল্লাহ্‌ বোল্ড লকমল ৩০ (৪১)!
আবার লকমল।
নাসির-মাহ্‌মুদউল্লাহ্‌-র জুটিতে পঞ্চাশ রান।
সঙ্গকারা মাহ্‌মুদউল্লাহ্‌-র স্টাম্পিং মিস্‌ করলেন।
৪১ ওভারে বাংলাদেশের ১৫০।
বাংলাদেশের রানের গতি বাড়ছে খানিকটা। হাতে কিছু উইকেট আছে, এবারে নাসির-মাহ্‌মুদউল্লাহ্‌-র হাতে হয়ত কিছু শট দেখা যাবে।
খানিকটা বেপরোয়া হয়েই মাহ্‌মুদউল্লাহ্‌ সেনানায়কেকে মাথার ওপর দিয়ে তুলে চার মারলেন। এইর’ম আরও কিছু শটের দরকার বাংলাদেশের।
আবার মেন্ডিস।
জলপানের বিরতি।
চতুরঙ্গ ১০-০-৩৩-১।
উইকেটের আশায় ম্যাথুজ লকমলকে ফেরত আনলেন। আর কয়েক ওভার পর বাংলাদেশকে রানের গতি বাড়াতেই হবে।
স্পিনারদের সামনে বাংলাদেশ রীতিমত চাপে।
পাওয়ারপ্লে।
নতুন ব্যাট্‌স্‌ম্যান মাহ্‌মুদউল্লাহ্‌।
শাকিব চার মারলেন, কিন্তু পরের বল সোজা মিড্‌-উইকেটে ম্যাথুজের হাতে!
আউট! শাকিব কট ম্যাথুজ বোল্ড প্রিয়াঞ্জন ২০(৩২)!
ডিপ ফাইন লেগে (!) মাহেলার দুর্দান্ত ফিল্ডিং দুটো নিশ্চিত রান বাঁচাল।
  

 

আনামুল প্রিয়াঞ্জনকে ফ্লিক করতে গিয়ে বল মাটিতে রাখতে পারলেন না। বল শূন্যে ছিল, থিরিমান্নে লাফিয়ে কোনওমতে আঙুল ছোঁয়ালেন; বল থিরিমান্নের পেছনে উড়ে যেতে থিরিমান্নে ঘুরে ঝাঁপিয়ে পড়ে অবিশ্বাস্য ক্যাচ ধরলেন।
আউট! আনামুল কট্‌ থিরিমান্নে বোল্ড প্রিয়াঞ্জন ৪৬(৭৮)!
সেনানায়কের বলেও এখন অস্বস্তিতে বাংলাদেশ। এই পিচে আড়াইশো তোলাও সহজ হবে না।
তুমুল হাততালির মধ্যে বাংলাদেশের একশো। আজকের ম্যাচের গুরুত্ব না থাকলেও মাঠ ভর্তি।
মেন্ডিসকে সরিয়ে সেনানায়কেকে আনলেন ম্যাথুজ। বাংলাদেশ তিন উইকেটের ধাক্কা খানিকটা সামলে উঠেছে।
চতুরঙ্গর জায়গায় এখন আবার থিসারা।
কাট্‌ করে চার মেরে শাকিব বাংলাদেশকে খানিকটা চাপমুক্ত করলেন।
চতুরঙ্গর সোজা বল মুশফিকুর মিস্‌ করলেন – আউট!
আউট! মুশফিকুর লেগ বিফোর উইকেট বোল্ড চতুরঙ্গ ৪(৬)
মোমিনুল মেন্ডিসের বলের লাইন বুঝতে সর্বৈব ব্যর্থ; বল সোজা অফস্টাম্পে! নতুন ব্যাট্‌স্‌ম্যান মুশফিকুর।
মোমিনুল বোল্ড মেন্ডিস ১(২)
রিপ্লে অনুযায়ী আউট ছিলেন শামসুর। স্টাম্প ঘেঁষে যেত। নতুন ব্যাট্‌স্‌ম্যান মোমিনুল।
মেন্ডিসের জোরদার অ্যাপিল! অক্সেনফোর্ড আঙুল তুললেন, যদিও রিপ্লে দেখে সন্দেহজনক মনে হল। জলপানের বিরতি।
আউট! শামসুর লেগ-বিফোর-উইকেট বোল্ড মেন্ডিস ৩৯ (৫৭)!
আনামুল-শামসুরের জুটি ক্রমশঃ বিপজ্জনক হয়ে উঠছে। শ্রীলঙ্কার খুব শীগ্‌গিরি কিছু উইকেট দরকার।
মেন্ডিসের বলে শামসুর ঝুঁকি নিয়ে সুইপ করার চেষ্টা করেন, বল ব্যাটের ওপরের দিকে লেগে চার। আনামুলও তড়িঘড়ি এগিয়ে এসে চতুরঙ্গকে লং-অনের ওপর দিয়ে তুলে এক্কেবার সীমানার বাইরে – ছয়!
চতুরঙ্গর বল শামসুরের ব্যাটের কানায় লেগে সঙ্গকারার বাঁদিক দিয়ে বাউন্ডারি। বাংলাদেশের পঞ্চাশ। থিসারার জায়গায় এবার মেন্ডিসের পালা।
সেনানায়কের অফব্রেকের জায়গায় এবার চতুরঙ্গর বাঁহাতি স্পিন।
আবার শামসুরের অনবদ্য একস্ট্রা কভার ড্রাইভ। পরপর দুবার। পাওয়ারপ্লে শেষ। লকমলের জায়গায় আবার থিসারা।
লকমলের বলে পয়েন্ট আর কভারের মধ্যে দিয়ে শামসুরের অসাধারণ ড্রাইভ! আবার চার! থিসারার জায়গায় এবার সেনানায়কে।
শামসুর-আনামুল দারুণভাবে দৌড়ে তিনটে সিঙ্গল, আনামুলের রাজকীয় কভার ড্রাইভ। বাংলাদেশ আবার রানে ফেরত।
আনামুলের ড্রাইভ কিছুটা শূন্যে ছিল, তবে ফীল্ডারের থেকে কিছুটা দূরে। প্রথম দু’ওভারে দুটো চারের পর লকমল আর থিসারা খানিকটা থিতু।
থিসারার প্রথম ওভারের শেষ বলে ফ্লিক করে আনামুলের চার। সৌজন্য – লকমলের মিসফীল্ড।
লকমলের বলে শামসুরের দুর্দান্ত কভার ড্রাইভ। প্রথম ওভার থেকে ছ’রান।

বাংলাদেশ – মুশফিকুর রহিম (অধিনায়ক), শামসুর রহমান, আনামুল হক (উইকেটকীপার), মোমিনুল হক, শাকিব অল্‌-হাসান, নাসির হোসেন, মাহ্‌মুদউল্লাহ্‌ রিয়াদ্‌, আরাফত সানি, রুবেল হোসেন, জিয়াউর রহমান, অল্‌-আমিন হোসেন।

 

শ্রীলঙ্কা – অ্যাঞ্জেলো ম্যাথ্যুজ (অধিনায়ক), কুশল পেরেরা, লাহিরু থিরিমান্নে, কুমার সঙ্গকারা (উইকেটকীপার), মাহেলা জয়বর্ধনে, আশান প্রিয়াঞ্জন, চতুরঙ্গ ডিসিলভা, থিসারা পেরেরা, সচিত্র সেনানায়কে, অজন্তা মেন্ডিস, সুরঙ্গ লকমল।

 

বাংলাদেশ টসে জিতে ব্যাটিংএর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

 

সবাইকে আজকের লাইভ ব্লগে স্বাগত জানাই। পাকিস্তান আর শ্রীলঙ্কা ইতিমধ্যেই ফাইনালে পৌঁছে যাওয়ায় আজকের খেলা সেই অর্থে গুরুত্বহীন।